ইলুমিনাতি- পৃথিবীর একটি গোপন সংগঠন যা সব কিছু বদলে দিতে চায়

১৯৭৬ সালের পহেলা মে ইলুমিনাতি নামে একটি সিক্রেট সোসাইটি গঠিত হয়। Illuminati বলতে illuminated বা, আলোকিত কিংবা নিজেদের বিশেষ জ্ঞানসম্পন্ন বলে দাবী করে এরকম একটি দলকে বুঝানো হয় যেটি ব্যাভারিয়াতে গঠিত হয়েছিলো। এই সংগঠনের উদ্দেশ্য ছিলো কুসংস্কার, যাপিত জীবনে ধর্মীয় প্রভাব এবং রাষ্ট্রীয় ক্ষমতার অপব্যবহারের বিরোধীতা করা। এই দলটির দীক্ষাগুরুর নাম এডাম ওয়েইশপ্ট। তিনি প্রথম জীবনে ছিলেন একজন শিক্ষক যিনি পরে এই সংগঠন গড়ে তোলেন।

 

ইলুমিনাতি নিয়ে সবার এত বিরোধীতা কেন?

ক্যাথলিক খ্রীস্টানরা এই সংগঠনটিকে পরবর্তীকালে Freemasons দের পরিচালিত একটি গোপন সংগঠন মনে করেছিলো যারা নতুন বিশ্বব্যবস্থা গড়ে তুলতে চায়। যারা ড্যান ব্রাউনের লেখা দ্যা দ্যা ভিঞ্চি কোড বইটি পড়েছেন তারা সেখানে ফ্রিমেসনদের খুঁজে পাবেন। এই বইটির সাথে সাথে illuminati রাও আবার আলোচনায় এসেছে। এদেরকে অনেকে মনে করে Anti Christ বা, মুসলিমদের ভাষায় দাজ্জাল।  এঞ্জেলস এন্ড ডিমন্স নামে ড্যান ব্রাউন আরেকটি বই লিখেছেন যেটি এদেরকে নিয়ে আবারো সবাইকে ভাবাচ্ছে।

এদের এই একচোখা প্রতীক মুসলিম এবং খ্রীস্টানদের কাছে দাজ্জাল বা, খ্রীস্টবিরোধী হিসেবে প্রতিষ্ঠিত হয়েছে

একটি তত্বমতে বিশ্বের সবচেয়ে বড় বড় ঘটনাগুলো এই সিক্রেট সোসাইটিই ঘটাচ্ছে। অনেক বিখ্যাত ব্যক্তিরাই গোপনে এই সংগঠনের সদস্য বলে অনেকেই মনে করেন। বিভিন্ন সংগঠনকে লোকজন সন্দেহের চোখে দেখে- আবার অনেকে নিজেদের ইলুমিনাতি বলেই পরিচয় দেয়। এটি মনে করা হয় যে- গান, কমিক, ভিডিও গেম, সিনেমা বিভিন্ন জিনিসের মাধ্যমে এরা এদের প্রচার চালায়। ওদের একটা ভিডিও দেখাই-

একটি ওয়েবসাইট নিজেদেরকে ওদের অফিসিয়াল ওয়েবসাইট বলে দাবী করছে এবং ইউটিউবে ওদের এই ভিডিওটি আছে। আপনারা যারা ভিডিওটি দেখতে চান তারা নিজ দায়িত্বে দেখবেন। এরা পুরো পৃথিবীকে এক করতে চায়, নতুনভাবে সব সাজাতে চায়। যেখনে কোন গরীব মানুষ থাকবে না, শুধু থাকবে ধনী আর বেশী ধনী। জ্ঞানই সম্পদের প্রকৃত উৎস। পৃথিবী প্রস্তুত, এখন সময় আর পরিকল্পনা লাগবে। এইসব কথা ওদের এজেন্ডায় লেখা আছে দেখলাম।

আপনাদের কাছে কি মনে হচ্ছে জানি না, আমার কাছে বেশ হাস্যকর লাগছে। আর এরা যেহেতু ধর্মবিরোধী আর, ইসলামে দাজ্জাল, খ্রীস্টান ধর্মে Anti-christ এর ধারণা আছে। আবার একচোখের চিহ্ন কিংবা, ত্রিভূজ এগুলো সবাইকে ভাবাচ্ছে।আইভরি শাকুরের(সম্ভবত প্রবাসী বাংলাদেশী) একটি গান ইউটিউবে বেশ সাড়া ফেলেছিলো- “ভাঙ্গা বাংলা, মাথাটা ফাটাবো”- ঐ গানে অনেকটা এরকম মেসেজ দেয়ার চেষ্টা হয়েছে বলে মনে হয়।

মুভি, উপন্যাস ইত্যাদিতে রহস্যের উপাদান হিসেবে এদেরকে ব্যবহার করা হয়। আমি মনে করি এরা দাজ্জাল বা, Anti-Christ বা, খুব শক্তিশালী কিছু না- আর পৃথিবীও নিয়ন্ত্রন করছে না। এগুলো প্রচলিত কিছু ধারণামাত্র- এদের সম্পর্কে যে অভিযোগ সেগুলো কিছুই প্রমাণিত না। বাংলাদেশেও এই টপিকটা প্রচুর আলোচনা হচ্ছে- Secret Revealed নামে একটি ইউটিউব চ্যানেল মিনারের জনপ্রিয় গানকেও এদের নাম বানিয়ে দিচ্ছে। আল্লাহ বা, সৃষ্টিকর্তা(যে যে নামেই ডাকুক) বাংলাদেশের এবং পৃথিবীর সবাইকে সব ধরণের বিপদ থেকে রক্ষা করুক এই কামনাই করি।

 

তথ্যসূত্রঃ

  1. https://illuminati.am/
  2. https://en.wikipedia.org/wiki/Illuminati
 

admin

আমার সম্পর্কে তেমন কিছু বলার নেই। লিখতে পারি না, তাই সবার লেখার জন্য প্ল্যাটফর্ম তৈরির চেষ্টা করছি।

৩ thoughts on “ইলুমিনাতি- পৃথিবীর একটি গোপন সংগঠন যা সব কিছু বদলে দিতে চায়

  • মার্চ ২৮, ২০১৯ at ৬:০৩ অপরাহ্ন
    Permalink

    unity is required to change the scenario.

     
    Reply
  • মার্চ ২৮, ২০১৯ at ১০:৫৮ অপরাহ্ন
    Permalink

    আমি দজ্জাল সম্পর্কে ভালো জানিনা, আর ইলুমিনাতি সম্পর্কে আমার বিশেষ ধারণা নেই। আপনার এই মনে হয় এই ধারণাটা ইমাজিনারি? যদি তাই হয়, তবে এই ধারণার ব্যুৎপত্তি হলো কোথা থেকে? ধন্যবাদ।

     
    Reply
  • মার্চ ৩০, ২০১৯ at ৪:৪৩ অপরাহ্ন
    Permalink

    ধারণাটা ইমাজিনারি না, এডাম ওয়েইশপ্ট এই ধারণাটা প্রথম এনেছিলেন।
    আমি যেটা মনে করি- ইলুমিনাতি নামে বিভিন্ন সংগঠন আছে(আরও থাকতে পারে), উপরে দেয়া ইউটিউবের ভিডিওটাও এরকম একটি সংগঠনের। তাদের ক্ষমতা সম্পর্কে প্রচলিত ধারণার সাথে আমি একমত নই।বাইবেলের Anti-christ আর, হাদিসের দাজ্জাল একই এটার সাথেও একমত নই(আমার জ্ঞানও এই ব্যাপারে সীমিত)।

     
    Reply

Leave a Reply